65

বর্তমান অফিস সফটওয়্যার হিসেবে হলো গুগল ডক্স

গুগল ডক্স হলো ওয়ার্ড প্রসেসিং প্রোগ্রাম যা ওয়েব ব্রাউজারে ব্যবহার করা যায়।অর্থাৎ গুগল ডক্স ব্যবহার করে কোনো ওয়ার্ড ডকুমেন্ট তৈরি,সম্পাদনা,সংরক্ষণ করা যায়।প্রোগ্রামটি ব্রাউজার ভিত্তিক হওয়ায় একে কম্পিউটারে ইন্সটল করার করার প্রয়োজন নেই।ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেই যেকোনো স্থানে বসেই গুগল ডক্স এক্সেস করা যায়। যে কারো গুগল একাউন্ট থাকলেই সে গুগল ডক্স ব্যবহার করতে পারে।

ডকুমেন্ট শব্দের সংক্ষিপ্ত রূপ হলো ডক্স।২০০৬ সালের মার্চের ৯ তারিখে গুগলের ওয়ার্ড প্রসেসিং প্রোগ্রাম গুগল ডক্সের যাত্রা শুরু হয়।।গুগলের অন্যান্য অনেক সার্ভিসের মতো এটি বিনামূল্যে ব্যবহার করা যায়।শুরুতে গুগল ডক্স শুধু কম্পিউটারে ব্যবহার করা গেলেও ২০১৪ সালে গুগল এর মোবাইল ব্যবহার উপযোগী সংস্করণ নিয়ে আসে।এন্ড্রয়েড ও আইওএস উভয় অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারীরা স্টোর থেকে Google Docs এপ্স ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারে।

ব্যবহারকারীদের সুবিধার্থে ২০১৯ সালে গুগল ডক্সে অটোগ্রামার সাজেশন,স্পেলিং চেকারের মতো বৈশিষ্ট্য যুক্ত হয়।এ প্রোগ্রামের অন্যতম সুবিধা হলো এতে একই ডকুমেন্টে ৫০ জন পর্যন্ত একসাথে কাজ করতে পারে!গুগল ডকে একই স্ক্রিনে কে কবে কি পরিবর্তন করলো রিভিশন হিস্ট্রি দেখে তা সহজেই বুঝতে পারা যায় দেখে একাধিক ব্যবহারকারী কাজ করলেও কোনো সমস্যা হয় না।অনলাইনভিত্তিক হওয়ায় গুগল ডক্স সবসময় আপডেটেড থাকে।গুগল ডক্সে লেখা কোনো লেখার কোনো অংশ নির্বাচন করলেই কমেন্ট আইকন আসে।এতে লেখা নিয়ে যে কোনো কমেন্ট বা নোটস সহজেই যুক্ত করা যায়।

ওয়ার্ডপ্রসেসিং এর কাজের পাশাপাশি হিসাব-নিকাশ বা স্প্রেডশিটের কাজের জন্য এতে রয়েছে Sheet.প্রেজেন্টশন তৈরি ,সম্পদনা এসব কাজের জন্য রয়েছে Slides.সার্ভের জন্য রয়েছে Forms. জরিপের কাজে গুগল ফর্ম ব্যবহার করলে সহজেই তথ্য গ্রহণ,ফলাফল প্রদান,ট্র্যাক রাখার কাজ সহজেই করা যায়।গুগল ডক্স এর ওয়েবসাইটে এ চারটি এপ্লিকেশন প্যাকেজ আকারে পাওয়া যায়।

-ইসরাত হক জেরিন
জুনিয়র এক্সিকিউটিভ
কন্টেন্ট ডেভলপমেন্ট টিম

Tags: No tags

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *